পৃথিবীর সবচেয়ে ধনী ১০টি দেশের তালিকা

পৃথিবীর সবচেয়ে ধনী ১০টি দেশের তালিকা

প্রিথিবী সবচাইতে ধনী ১০টি দেশ

একটি দেশের মোট সম্পদের পরিমাণ এর পাশাপাশি নতুন উপার্জনের সফল পথ বেকারত্বের কম হওয়ার প্রাকৃতিক সম্পদ আর জীবনযাত্রার মান কতটা উন্নত তাই বলে দেয় একটি দেশ কতটা ধনী।আজ আমরা জানবো পৃথিবীর সবচাইতে ধনী কিছু দেশ সম্পর্কে, পাশাপাশি আমরা জানবো এ দেশগুলো আসলে কিভাবে এত ধনী হল ।

পৃথিবীর সবচেয়ে ধনী ১০টি দেশের তালিকা

সংযুক্ত আরব আমিরাত

 

সংযুক্ত আরব আমিরাত, এ দেশের জিডিপি ৪২১.১  বিলিয়ন মার্কিন ডলার। সংযুক্ত আরব আমিরাত মধ্যপ্রাচ্যের বিশাল আয়তনের একটি দেশ। জনসংখ্যা মাত্র 9 মিলিয়ন ।এখানকার বেশিরভাগ উপার্যনি ঋসে খনিজ তেল থাকে। তবে এদেশের টেলিকম খাতও এখানকার মোট আয়ের বিশেষ প্রভাব রাখে। বিশ্বজুড়ে আরব আমিরাতের ব্যবসাকে যেমন ছড়িয়ে দিচ্ছে তেমনি প্রযুক্তি ও সেবা খাতে করছে আরো উন্নত। সাম্প্রতিককালের সংযুক্ত আরব আমিরাত এর পর্যটন খাত নজর কেড়েছে। এদেশে ইনকাম ট্যাক্স দেয়া লাগে না তাই  ব্যবসায়ীদের জন্য এটা একরকম স্বর্গ।

নরওয়ে

এ দেশের জিডিপি ৪০৩ দশমিক 3 বিলিয়ন মার্কিন ডলার। নরওয়ে তার অপরূপ প্রাকৃতিক দৃশ্য জাদুঘরগুলোর জন্য বিখ্যাত। মৎশ শিল্প, প্রাকৃতিক গ্যাস, আর অপরিশোধিত তেল এ দেশের অর্থনীতির মূল ভিত।

নরওয়ে মুক্ত অর্থনীতির অনুসারি।নরওয়ে খুব কম বেকারত্ব ও বিনামূল্যে স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করে অত্যন্ত উৎপাদনশীল একটি দেশ ।

আয়ারল্যান্ড

এই দেশটির জিডিপি 328.70 মার্কিন ডলার। আয়ারল্যান্ড দেশটির রাজধানী হলো ডাবলিন। শহর পর্যটকদের পছন্দের তালিকায় থাকে উপরের দিকে ।এদেশের অর্থনীতি-ব্যবসা ও বিনিয়োগের উপর নির্ভরশীল। 2008 সালের পর সেখানকার অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধির গতি খানিকটা কমে গেলেও এখন জিডিপির হার অনেক বেশি। এই দেশটির অন্যতম অর্থনৈতিক গুলো হল মজুদকৃত তেলের প্রাচুর্যতা, মৎস্য শিল্প, কাঠ শিল্প, বিদ্যুৎ শিল্প, অর্থনৈতিক শক্তিকে বেগবান করে চলেছে।

 

সিঙ্গাপুরের

সিঙ্গাপুর এদেশের জিডিওপি 372.1 বিলিয়ন মার্কিন ডলার। সিঙ্গাপুর মুক্ত অর্থনীতি নীতি এ দেশের অর্থনৈতিক শক্তিকে বেগবান করে চলেছে ।এই দেশেই রয়েছে বিশ্বের দ্বিতীয় ব্যস্ততম বন্দর । এই দেশটি  ভীষণভাবে জাহাজ ও পরিবহন ব্যবস্থার উপর নির্ভরশীল। পৃথিবীর সবচেয়ে পরিচ্ছন্য দেশ সেরা বিমানবন্দর ও তাদের সুযোগ সুবিধার জন্য বিশ্বজুড়ে সুপরিচিত। অর্থাৎ সিঙ্গাপুরের ধনী হওয়ার পেছনে দেশ হিসেবে ব্যবসা-বাণিজ্যকে উন্নতিকরণ ওষুধের ওপর নির্ভরশীল হওয়া অন্যতম কারণ।

কাতার

কাতার দেশটি বর্তমান জিডিপি 175.60 বিলিয়ন ডলার। প্রায় 2 কোটি 10 লাখ মানুষের এই দেশের অধিকাংশ মানুষই উত্তরাধিকারসূত্রে বিভিন্ন ব্যবসার সাথে জড়িত। খনিজ তেলের খনি হিসেবে পরিচিত এ দেশটির মোট উপার্জনের 70 শতাংশই আসে তেল থেকে। এখানকার আর একটি অর্থনৈতিক খাত হলো পর্যটন। প্রতিনিয়ত এ খাতে আধুনিকায়ন করছে কাতার। ফলাফল হিসেবে বারছে তাদের জাতীয় আয়। এছাড়া আসন্ন 2022 সালের বিশ্বকাপ ফুটবল দেশটির অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধিতে ভালো একটা প্রভাব ফেলবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।আরোব বিশ্বের অন্যান্য দেশগুলো এসব কারণে কাতারকে সমিহের চোখেই দেখে।

লুক্সেমবার্গ

লুক্সেমবার্গ এদেশের মার্কিন জিডিপি 71 দশমিক 1 মিলিয়ন মার্কিন ডলার। ধনী দেশগুলোর তালিকায় লুক্সেমবার্গ দীর্ঘদিন ধরে নিজেদের নাম লিখে রেখেছে। এখানকার রক্ষণশীল নীতির সঙ্গে স্বাস্থবান শিল্পখাতে ও স্টিল সেক্টর এ দেশের সম্পদ এর মূল উপাদান। বিসাল শিল্পখাত থাক শর্তেও দেশজুড়ে সবুজের ছোঁয়া লুক্সেমবার্গে বিশ্বজুড়ে পরিচিত করেছে একটি মডেল দেশ হিসেবে। পর্যটন খাতও  দেশটির উপার্যনের অন্যতম একটি মাধ্যম।

ইমেইল মার্কেটিং কি? কিভাবে ইমেইল মার্কেটিং করবেন?

সানমারিনো

সানমারিনো, এদেশের জিডিপি 1.65 বিলিয়ন মার্কিন ডলার। ইতালির কোলঘেসে অবস্থান করা সানমারিনো ছোট্ট একটি দেশ হলেও সেখানকার অর্থনীতির প্রবৃদ্ধি অনেক বড় ও উন্নত দেশের চেয়েও বেশি। পৃথিবীর অন্যতম ক্ষুদ্র দেশকে সানম্যারিনো।এখানকার বেকারত্বের হার ইউরোপের মধ্যে সবচেয়ে কম। পর্যটন খাত দেশের অর্থনিতির সবচেয়ে বড় প্রভাবক।

সুইজারল্যান্ডে

 জিডিপিতে মাথাপিছু আয় পিপিপি $72,064 কোটি। গত বছর পিপিপি ডলারে দেশটির মাথাপিছু জিডিপি ছিল ৬৭ হাজার ৭০০ ডলার। সুইজারল্যান্ড শুধু ঘড়ি, সাদা চকোলেট, সুইস ছুরি বা প্রাকৃতিক সৌন্দর্য নয়। পর্যটন তো আছেই, ভারী শিল্পের জন্যও দেশ বিখ্যাত। সুইজারল্যান্ডে আর্থিক পরিষেবার খ্যাতি বা কুখ্যাতি শীর্ষস্থানীয়। কোটিপতির ঘনত্বেও দেশটি সবার উপরে। প্রতি মিলিয়ন প্রাপ্তবয়স্কদের মধ্যে 9,426 জন কোটিপতি। যাইহোক, কোভিডের প্রভাব উত্পাদনকে ব্যাপকভাবে প্রভাবিত করেছে। 2020 সালে, উত্পাদন 2.9% কমেছে।

যুক্তরাষ্ট্র

 করোনার কারণে কঠিন সময় কাটলেও 2020 সালে ধনী দেশের তালিকায় শীর্ষে রয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। পিপিপিতে মাথাপিছু আয় $83,418। ইনস্টিটিউট ফর পলিসি স্টাডিজ অনুসারে, মার্চ 2021 থেকে এপ্রিল 2022 এর মধ্যে, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে 619 বিলিয়নেয়ারের সম্মিলিত সম্পদ ছিল 61.72 ট্রিলিয়ন। এটি 55 শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে।

ম্যাকাও 

চীনের প্রশাসনিক অঞ্চল ম্যাকাও বিশ্বের দ্বিতীয় ধনী দেশ। “আন্তর্জাতিক ডলার” হল 1 লক্ষ $ 14,000 372 মাত্র 6 লক্ষ জনসংখ্যার এই অঞ্চলে 40 টিরও বেশি ক্যাসিনো রয়েছে এই ক্যাসিনো করোনার কারণে বন্ধ হয়ে গেছে, এটি গত জুলাই থেকে আবার চালু করা হয়েছে।

বাংলাদেশের অবস্থান 

191টি দেশের মধ্যে বাংলাদেশের অবস্থান 143তম GDP-PPP $5,026 6 দেশটি ভারত ও পাকিস্তানের পিছনে রয়েছে ভারত অবস্থান 124 ($ 638) এবং পাকিস্তান অবস্থান 137 ($ 572)।

বিশ্বের সবচেয়ে ধনী যে ১০ দেশ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *