জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করার নিয়ম ২০২২

জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করার নিয়ম ২০২২

জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করার নিয়ম ২০২২

 আপনার কি জন্ম নিবন্ধনে কার্ডে ভুল আছে? এখন জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করতে চাচ্ছেন। তাহলে মনোযোগ দিয়ে ধৈর্য সহকারে এই আর্টিকেলটি পড়ে ফেলুন

 আমরা আজ জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করার নিয়ম সম্পর্কে আলোচনা করবো। 

দেশের সকল প্রকার সু্যোগ সুবিধা পেতে হলে, দেশের নাগরিক প্রমান করতে হয়। আর এই নাগরিক প্রমানের প্রথম ধাপ হলো জন্ম সনদ। আমাদের অনেকের জন্ম নিবন্ধন সনদে ভুল আছে। অনেক সময় সাবধানে থাকার পর ও জন্ম নিবন্ধন সনদে ভুল তথ্য আসে।

আমাদের মধ্যে অনেক মানুষ আছে, জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করার নিয়ম সম্পর্কে জানে না। তারা কোথায় গিয়ে কিভাবে জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করবেন এই বিষয় নিয়ে টেনশনে পড়ে যায়। 

জন্ম নিবন্ধন সনদের ভুল যদি সংশোধন করা না হয়, তাহলে জাতীয় পরিচয় পত্রে ও ভুল তথ্য আসবে। আর এই ভুলের জন্য আপনাকে আরো অনেক সমস্যার সম্মুখীন হতে হবে। তাই আমরা আজ জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করার উপায় সম্পর্কে আলোচনা করবো। 

 

জন্ম নিবন্ধন সংশোধন আবেদন 2022

জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করার জন্য অনলাইনে আবেদন করতে হয়। জন্ম নিবন্ধন সংশোধন কারার জন্য একটি সরকারি ওয়েবসাইট রয়েছে। ওয়েবসাইটে ফরম পূরণ করে জন্ম নিবন্ধন সংশোধন আবেদন করতে হয়। আপনাকে আমরা আজ জন্ম নিবন্ধন সংশোধন আবেদন করার প্রক্রিয়ার সাথে পরিচয় করিয়ে দেবো।

জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করার নিয়ম 

 জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করার জন্য আপনাকে প্রথমেই ইউনিয়ন পরিষদে গিয়ে, জন্ম নিবন্ধন সনদ ডিজিটাল করতে হবে। ডিজিটাল করার জন্য আপনাকে অনলাইনে আবেদন করতে হবে। আপনি কম্পিউটার বা মোবাইল ফোন দিয়েও আবেদন করতে পারবেন।  তবে মোবাইল ফোনের চেয়ে কম্পিউটার দিয়ে আবেদন করাই ভালো।

প্রথম ধাপে জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করার নিয়ম 

প্রথমে কম্পিউটার বা মোবাইল ফোন দিয়ে যেকোনো একটা ব্রাউজার ওপেন করুন। ব্রাউজারে গিয়ে bdris.gov.bd লিখে গুগলে সার্চ করুন। সার্চ করে bdris.gov.bd ওয়েবসাইটে প্রবেশ করুন।

 

ওয়েবসাইটে প্রবেশ করার পর জন্ম নিবন্ধন সংশোধন আবেদন করার একটি অপসন দেখতে পাবেন। ঐ অপসনে ক্লিক করুন। তারপর আপনার জন্ম নিবন্ধন নাম্বার ও জন্মতারিখ দিয়ে অপসনে অনুসন্ধান করুন।

অনুসন্ধান বাটনে ক্লিক করার পর, আপনার জন্ম সনদের ডিটেইলস চলে আসবে। আপনার নিবন্ধন কার্যলয়ের ঠিকানা দিয়ে, নির্বাচন অপসনে ক্লিক করুন। 

দ্বিতীয় ধাপে জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করার নিয়ম 

 

নির্বাচন অপসনে ক্লিক করার পর, আপনি কোন কোন বিষয় সংশোধন করতে চান, তার একটা লিষ্ট দেওয়া হবে। আপনি যেসব তথ্য গুলো সংশোধন করতে চান, সেগুলো সিলেক্ট করে দিন। আপনি কোন কারনে জন্ম সনদ সংশোধন করতে চান, সে কারন গুলো উল্লেখ করে দিন।

 

তৃতীয় ধাপে জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করার নিয়ম 

একদম নিচের ধাপে গিয়ে আপনার সব তথ্য চেক করে নিবেন। তারপর আবেদনকারীর মোবাইল নাম্বার দিবেন। তারপর সাবমিট করুন। সাবমিট করার পর অ্যাপ্লিকেশন আইডি সংগ্রহ করে সংশোধন আবেদন পত্রটি কম্পিউটার দিয়ে প্রিন্ট করুন।  পরিবর্তি সময়ে সংশোধন এর প্রয়োজন হলে, আবেদনকারীর সাথে মোবাইলে যোগাযোগ করা হবে।

 

চতুর্থ ধাপে জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করার নিয়ম 

 

অনলাইনে আবেদন করার পর, প্রিন্ট করা ফরম গুলো সিটি করপোরেশন বা পৌরসভায় জমা দিতে হবে। তারপর ইউনিয়ন পরিষদ থেকে আপনাকে নতুন সংশোধিত জন্ম সনদ প্রদান করা হবে।

 

জন্ম নিবন্ধন সংশোধন আবেদন করতে কি কি ডকুমেন্ট লাগে। জন্ম নিবন্ধন সনদ ডাউনলোড অনলাইন কপি 2022

 

জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করতে কিছু প্রয়োজনিয় কাগজ পত্র লাগে। আবেদনকারীর পারিচয় পত্র, চেয়ারম্যানের প্রত্যয়ন পত্র, ও শিক্ষাগত যোগ্যতা সার্টিফিকেট থাকলে সার্টিফিকেট। পিতা মাতার পরিচয় পত্র বা জন্ম সনদের ফটোকপি। 

 

জন্ম নিবন্ধন সনদ ডাউনলোড 2022

 

আমরা দুঃখের সাথে যানাচ্ছি যে আপনি অরজিনাল জন্ম সনদ ডাউনলোড করতে পারবেন না। অরজিনাল জন্ম সনদ নিতে হলে, আপনাকে ইউনিয়ন পরিষদে যোগাযোগ করতে হবে।

 

জন্ম নিবন্ধন অনলাইন কপি ডাউনলোড করার নিয়ম সম্পর্কে নিচে আলোচনা করা হলো।

 

জন্ম নিবন্ধন অনলাইন কপি ডাউনলোড করতে হলে, প্রথমে মোবাইল বা কম্পিউটার দিয়ে যেকোনো একটা ব্রাউজার ওপেন করতে হবে।

ব্রাউজারে  Online BRIS লিখে সার্চ করতে হবে। সার্চ করে Online BRIS ওয়েবসাইটে প্রবেশ করতে হবে।

ওয়েবসাইটে প্রবেশ করার পর, একটা খালি ঘর দেখতে পাবেন। খালি ঘরে আপনার জন্ম সনদের ১৭ ডিজিটের নাম্বার দিন।

 

জন্ম সনদের খালি ঘর পূরণ করে, নিচে আরো একটা খালি ঘর দেখতে পাবেন। ঐ খালি ঘরে জন্ম সনদের তারিখ প্রদান করুন।

 

সঠিক ভাবে জন্ম সনদের তারিখ আর জন্ম সনদের ১৭ ডিজিটের নাম্বার প্রদান করার পর, নিচে একটা verify অপসন দেখতে পাবেন। ঐ অপসনে ক্লিল করুন। এবং তারপর জন্ম নিবন্ধন অনলাইন কপি ডাউনলোড করুন।

 

জন্ম নিবন্ধন সংশোধন ফরম 2022 pdf

 

আপনি যদি জন্ম নিবন্ধন সংশোধন ফরম ডাউনলোড করতে চান, তাহলে প্রথমেই br.lgd.gov.bd ওয়েবসাইটে প্রবেশ করতে হবে। ঐ সাইটে প্রবেশ করার পর, জন্ম সনদের সঠিক তথ্য দিয়ে জন্ম নিবন্ধন সংশোধন ফরম 2022 pdf আকারে ডাউনলোড করতে পারবেন।

 

জন্ম নিবন্ধন আবেদনের বর্তমান অবস্থা জানুন

 

আপনি অনলাইনের মাধ্যমে জন্ম নিবন্ধন আবেদনের বর্তমান অবস্থা জানতে পারবেন। জন্ম নিবন্ধন আবেদনের বর্তমান অবস্থা জানার জন্য, প্রথমে আপনার মোবাইল ফোন অথবা কম্পিউটার দিয়ে যেকোনো একটা ব্রাউজার ওপেন করতে হবে।

ব্রাউজার ওপেন করে bdris.gov.bd/br/application/status লিখে সার্চ করবেন। সার্চ করার পর প্রথম যে ওয়েবসাইটি আসবে, সেই ওয়েবসাইটে প্রবেশ করবেন। ওয়েবসাইটে প্রবেশ করার পর তিনটি খালি বক্স দেখবেন। 

 

তারপর প্রথমে আবেদন পত্রের ধরন একটি অপসন দেখতে পাবেন। আপনার প্রয়োজনিয় অপসনে ক্লিক করুন। প্রয়োজনিয় অপসনে ক্লিক করার পর অ্যাপ্লিকেশন আইডি লেখা একটা বক্স দেখতে পাবেন। আপনি অনলাইনে জন্ম নিবন্ধন আবেদন করার পর যে একটা আইডি কোড পেয়েছিলেন, সেই আইডি কোডটি প্রদান করুন।

 

তারপর নিচে আরেকটি বক্স দেখতে পাবেন, ঐ বক্সে আপনার জন্ম তারিখ প্রদান করুন। তারপর নিচের দিকে দেখুন অপসন দেখতে পাবেন। ঐ দেখুন অপসনে ক্লিক করে জন্ম নিবন্ধন আবেদনের বর্তমান অবস্থা জানতে পারবেন।

 

অনলাইন জন্ম নিবন্ধন আবেদন পত্র প্রিন্ট করার নিয়ম জানুন

 

অনলাইন জন্ম নিবন্ধন আবেদন পত্র প্রিন্ট করতে হলে bdris.gov.bd ওয়েবসাইটে প্রবেশ করতে হবে। ওয়েবসাইটে প্রবেশ করার পর আপনার জন্ম সনদের তথ্য প্রদান করুন। 

 

তথ্য প্রদান করার পর জন্ম নিবন্ধন আবেদন পত্র প্রিন্ট লেখা একটি অপসন পেয়ে যাবেন। ঐ অপসনে ক্লিক করুন। ক্লিক করার পর আবেদনের ধরন বাছাই করে জন্ম তারিখ ও অ্যাপ্লিকেশন আইডি প্রদান করুন। তারপর একটি প্রিন্ট অপসন দেখতে পাবেন। ঐ প্রিন্ট অপসনে ক্লিক করার পর নিবন্ধন পত্র প্রিন্ট করতে পারবেন। প্রিন্ট করে আপনার সিটি করপোরেশন অফিসে অথবা ইউনিয়ন পরিষদে জমা দিন। 

 

জন্ম নিবন্ধনে পিতা/মাতার নাম সংশোধন করার নিয়ম 

 

বর্তমানে জন্ম সনদে পিতা/মাতার নামেই বেশি ভুল দেখা যায়। পিতা/মাতার ভুলের কারনে জন্ম সনদে ভুল তথ্য আসে। এই ভুলের কারনে অনেক সম্মস্যার সম্মুখিন হতে হয়।

 

অনলাইনের মাধ্যমে জন্ম নিবন্ধনে পিতা/মাতার নাম সংশোধন করতে পারবেন। চিন্তা করার কিছু নাই। যেখানে সমস্যা আছে সেখানে সমাধান ও আছে।

 

আপনার কাছে শিক্ষা সনদের কোনো কপি থাকলে পিতা/মাতার নাম খুব সহজেই সংযোজন করতে পারবেন। পিতা/মাতার জাতিয় পরিচয় পত্র বা জন্ম সনদ, প্রমান সহ ওয়েবসাইটে আপলোড করে জন্ম নিবন্ধনে পিতা/মাতার নাম সংশোধন করতে পারবেন।

 

জন্ম নিবন্ধনে ইংরেজি তথ্য সংযোজন করবেন যেভাবে 

 

জন্ম নিবন্ধনে ইংরেজি তথ্য পূর্বে সংযোজন করা লাগতো না। কিন্তু বার্তমানে জন্ম নিবন্ধনে ইংরেজি তথ্য সংযোজন করা লাগে। যাদের জন্ম সনদে ইংরেজি তথ্য সংযোজন করা নাই, তারা অনলাইন ডাটাবেজ করার সময় ইংরেজি তথ্য সংযোজন করতে পারবেন। 

 

জন্ম নিবন্ধন বয়স সংশোধন করার নিয়ম সম্পর্কে জানুন

 

আপনার কি জন্ম সনদে ভুল বয়স দেওয়া আছে? এখন কিভাবে জন্ম সনদ বয়স সংশোধন করবেন, এই বিষয় নিয়ে চিন্তিত। চিন্তার কোনো কারন নাই। এখন খুব সহজেই জন্ম সনদের ভুল বয়স সংশোধন করতে পারবেন।

 

আপনি আপনার মোবাইল ফোন বা কম্পিউটার দিয়ে, যেকোনো একটা ব্রাউজার ওপেন করুন। তারপর bdris.gov.bd ওয়েবসাইটে প্রবেশ করুন। প্রবেশ করার পর দুইটা খালি ঘর দেখতে পাবেন। ঐ ঘরে জন্ম সনদের ১৭ ডিজিটের নাম্বার ও জন্ম তারিখ প্রদান করুন। তারপর নিচে অনুসন্ধান বাটনে ক্লিক করুন।

 

অনুসন্ধান বাটনে ক্লিক করার পর, একটা নতুন পেইজ ওপেন হবে। নতুন পেইজে জন্ম নিবন্ধনের সঠিক তথ্য প্রদান করতে হবে। তারপর জন্ম তারিক সংশোধনের একটা অপসন দেখতে পাবেন। ঐ অপসনে ক্লিক করে আপনার সঠিক জন্ম তারিখ প্রদান করুন। তারপর নিচে ভুল লিপিবদ্ধ লেখা একটা অপসন দেখতে পাবেন। ঐ অপসনে ক্লিক করুন।

 

ক্লিক করার পর নতুন আরেকটি পেইজ দেখতে পাবেন। ঐ পেইজের খালি ঘর গুলো সঠিক তথ্য দিয়ে পূরণ করুন। তারপর মোবাইল নাম্বার প্রদান করার একটা অপসন দেখতে পাবেন। ঐ অপসনে আপনার মোবাইল নাম্বার প্রদান করুন। মোবাইল নাম্বার প্রদান করার পর একটা সংযোজন অপসনে ক্লিক করুন।

 

তারপর সার্টিফিকেট থাকলে সার্টিফিকেট এর ছবি তুলে জমা দিন। সর্বশেষে ফি আদায়ের একটা অপসন দেখতে পাবেন। ঐ অপসনে ক্লিক করে ফি প্রদান করুন।

 

উপরের সব প্রক্রিয়া গুলো সঠিক ভাবে সম্পূর্ণ করতে পারলে, জন্ম সনদ বয়স সংশোধন আবেদন করা সম্পূর্ণ হবে। তারপর অল্প কিছু দিনের মধ্যেই ইউনিয়ন বা পৌরসভা থেকে জন্ম সনদ সংশোধন কপি হাতে নিতে পারবেন।

 

জন্ম নিবন্ধন সনদ সংগ্রহ করবেন যেভাবে 

 

ইউনিয়ন পরিষদে বা পৌরসভায় জন্ম নিবন্ধন আবেদন পত্র জমা দিবেন। তারপর ইউনিয়ন বা পৌরসভার অফিসার আপনাকে নতুন জন্ম সনদ প্রদান করবে। তারপর আপনার ইউনিয়ন বা পৌরসভার চেয়ারম্যান ও সচিবের স্বাক্ষর দিয়ে আনবেন নতুন জন্ম সনদে।

 

জন্ম নিবন্ধনের গুরুত্ব সম্পর্কে জানুন

 

জন্ম সনদ নাগরিকের প্রথম রাষ্ট্রীয় স্বীকৃতি। রাষ্ট্রের সকল সুযোগ সুবিধা পেতে হলে, প্রথমে রাষ্ট্রের নাগরিক হতে হবে। আর রাষ্ট্রের নাগরিক এর প্রথম পরিচয় হলো জন্ম সনদ। মানুষ যখন দেশের নাগরিকত্ব লাভ করবেন, তখন থেকে দেশের সুযোগ সুবিধা ভোগ করতে পারে। তাই প্রথমেই দেশের নাগরিক হতে হলে জন্ম সনদ করতে হবে। 

 

  • জন্ম সনদ কোন কোন প্রয়োজনে লাগে
  • শিশুদের স্কুলে ভর্তির সময় জন্ম সনদের প্রয়োজন হয়
  • ভোটার আইডি কার্ড করতে হলে জন্ম সনদের প্রয়োজন হয়
  • ভিসা করে বিদেশে যাওয়ার জন্য জন্ম সনদের প্রয়োজন হয় 
  • যেকোনো চাকরির ক্ষেত্রে বয়স প্রমানের জন্য জন্ম সনদের প্রয়োজন হয়। 
  • বিয়ে করার সময় বয়স প্রমানের জন্য জন্ম সনদের প্রয়োজন হয়। আরও অনেক ক্ষেত্রে জন্ম সনদের প্রয়োজন হয়।
  • দেশের নাগরিক হতে হলে আপনাকে অবশ্যয় প্রথম পর্যায়ে জন্ম সনদ করতে  হবে। আপনি যে দেশের নাগরিক তার প্রথম প্রমাণ হলো জন্ম সনদ। 

কিভাবে আপনার ইন্টারনেট ব্রাউজারের গতি বাড়াবেন।

শেষ কথা 

 

আপনি ইতিমধ্যে জন্ম সনদ সংশোধন করার নিয়ম সম্পর্কে জেনে গেছেন। আশা করি জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করতে গেলে আর কোনো সমস্যায় পড়বেন নাহ। এইক্ষন মনোযোগ দিয়ে ধৈর্য সহকারে আর্টিকেলটি পড়ার জন্য আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *